সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃ’ত্যু নিয়ে উঠে আসছে হাজার প্রশ্ন। এসবের মাঝেই সামনে এসেছে নতুন ত’থ্য। যা তাঁর ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে। বান্ধবী রিয়া চ’ক্রবর্তীর সঙ্গে স’ম্পর্কের অবনতি-ই কি সুশান্তের মা’নসিকভাবে ভে’ঙে পড়ার কারণ? উঠে আসছে এমন প্রশ্ন।

ঘনিষ্ঠ সূত্রে জানা যাচ্ছে, লকডাউনেক মধ্যেও সুশান্তের সঙ্গেই থাকছিলেন বান্ধবী রিয়া চ’ক্রবর্তী। তবে কয়েকদিন আগেই নাকি রিয়া বাড়ি চলে গিয়েছিলেন। আবারও আরও একটি সূত্র বলছে রিয়াকে বাড়ি পাঠিয়েছিলেন সুশান্ত নিজেই।

স’ন্দেহ হওয়ায় সুশান্তের বান্দ্রার ফ্ল্যাটেও পৌঁছোন তাঁর দিদি। তবে সুশান্ত তাঁকে কিছু জানিয়েছিলেন কিনা তা স্পষ্ট নয়। এদিকে মৃ’ত্যুর আগের দিন সুশান্ত তাঁর বান্ধবী রিয়াকে আবারও ফোন করেন বলে কল লিস্ট থেকে জানা যাচ্ছে, যদিও ওইদিনও তিনি ফোন ধরেননি। এরপরেই বন্ধু মহেশ শেঠিকে ফোন করলে তিনিও ফোন ধরেননি বলে খবর।

এছাড়াও সুশান্তের মৃ’ত্যু নিয়ে উঠে আসছে নানা মত। কেউ বলছেন, সুশান্ত মা’নসিক অবসাদে ভুগছিলেন, সে কারণেই আত্মহ’ত্যা। আবার কেউ সুশান্তের মৃ’ত্যুর পিছনে অন্য র’হস্যের কথা বলছেন। কঙ্গনা রানাওয়াত সুশান্তের মৃ’ত্যুর ঘ’টনায় দায়ি করেছেন বলিউডের প্রভাবশালীদের। একইভাবে সুশান্তের মৃ’ত্যুর পর শেখর কাপুরের টুইটও অন্য কথা বলছে।

পরিচালক শেখর কাপুর লিখেছেন, ‘আমি জানতাম তুমি কী য’ন্ত্রণার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছো। আমি সেই খা’রাপ মানুষগু’লির কথা জানতাম, যাঁরা তোমায় টেনে নিচে নামাতে চেয়েছিল। তুমি আমার কাঁধে মাথা রেখে কাঁদতে পারতে। আমার গত ৬ মাস যদি তোমার সঙ্গে থাকতাম, তাহলে খুব ভালো হতো। যদি তুমি আমার কাছে পৌঁছতে পারতে ভালো হতো। যা ঘটেছে, সেটা তোমার কর্মফল নয়।’

সুশান্তের ঠিক মৃ’ত্যুর পরপরই একটি টুইটে শেখর কাপুর লিখেছিলেন, ‘প্রিয় সুশান্ত তোমার অনেক কিছু দেওয়ার ছিল। হয়ত পৃথিবী তোমার বিশ্বাসের উপর নির্ভর করে না। তোমার এভাবে চলে যাওয়া ঠিক হয়নি।… ’

শেখর কাপুরের এই টুইটের উত্তরে এক ব্যক্তি লিখেছেন, ‘মুখ খুলুন স্যার। এক বিদেহী আত্মার জন্য আপনিই কিছু করতে পারেন। আপনার কথা অন্য ভু’ক্তভোগীদের সাহসী করবে। আর যদি না বলে, তাহলে হয়তবা আরও এক সুশান্তের জন্য ভবি’ষ্যৎ-এ আফসোস করতে হবে।’

আরও একটি টুইটে ওই ব্যক্তি লিখেছেন, ‘বলিউড মাফিয়াদের ভ’য় পাবেন না। গোটা দেশ আপনাকে সমর্থন করবে। আমরাও আপনার পাশে আছি। আপনি মুখ খুলুন। সুশান্তের বলার জায়গা ছিল না, তবে আপনার আছে। আমি জানি আপনার অনেক বন্ধু আপনাকে টেনে নিয়ে যাবে। কিন্তু আপনি ধর্মের পথ বেছে নিন। কর্ণ হবে না। এটা অধর্ম।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here