আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ক’রোনার টিকা এ বছরেই পাওয়া যাবে বলে আশাবা’দী বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সংস্থার প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা সৌম্য স্বা’মীনাথন জানিয়েছেন,

পরীক্ষার চূড়ান্ত পর্যায়ে থাকা বেশ কয়েকটি টিকার আশাব্যঞ্জক ফল এসেছে। এদিকে জার্মান প্রতিষ্ঠান কিউরভ্যাক ও চীনা প্রতিষ্ঠান ক্লোভারের টিকা মানবদে’হে পরীক্ষামূ’লক প্রয়োগ শুরু হয়েছে।

এদিকে আগামী মাসে মানবদে’হে পরীক্ষার শেষ ধাপ শুরু করতে যাচ্ছে মা’র্কিন বায়োটেক মডার্না। দুই হাজার একুশের শুরুতেই উৎপাদনে যেতে চায় প্রতিষ্ঠানটি।

মানবদে’হে ক’রোনা প্রতি’ষেধকের পরীক্ষামূ’লক প্রয়োগ শুরু করেছে জার্মান বায়োফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি কিউরভ্যাকও। ইতিবাচক ফল এলে জানুয়ারিতেই বিপণন শুরু হবে প্রতি’ষেধক। জো’র চেষ্টা চালাচ্ছে চীনা প্রতিষ্ঠান ক্লোভারও। প্রথম ধাপের পরিক্ষা সফল হলে, আগস্টে শুরু হবে দ্বিতীয় ধাপ।

এসব অগ্রগতিতেই আশাবা’দী বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সংস্থাটির প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা সৌম্য স্বা’মীনাথন বলছেন, ক্লিনিক্যাল ট্রায়েলে কার্যকর প্রমাণ হচ্ছে কিছু ভ্যাকসিন। এসময় ম্যালেরিয়া চিকিৎসায় ব্যবহৃত হাইড্রোক্লোরোকুইন কভিড রো’গীর মৃ’ত্যু ঠে’কাতে পারে না বলেও জানান তিনি।

ক’রোনার ভ্যাকসিনের অপেক্ষায় রয়েছে পুরো বিশ্ব। নানা দেশের বিজ্ঞানীরা জো’র চেষ্টা চালাচ্ছেন প্রতীক্ষিত এই টিকা আবি’ষ্কারে। ক’রোনার প্রমাণিত কোনো ঔষুধ না থাকায় ভ্যাকসিনেই মুক্তি খুঁজছে প্রায় সাড়ে সাতশো কোটি মানুষ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here