একটি মে’য়ের ঠিক ২০ বছর পেরলেই পাড়া প্রতিবেশী আত্মিয় স্বজন মা বাবা সবার একটাই মাথা ব্যাথা হয়ে ওঠে, যে মে’য়ের বিয়ে দেওয়ার সময় হয়ে এল। সেই নিয়ে তারা জুড়ে ফে’লে হাজার প্রশ্ন।

এই প্রশ্নের উত্তর দিতে দিতে ২৫ বছরের বেশি অবিবা’হিত মে’য়েদের কাছে বির’ক্তির হয়ে ওঠে এই পাড়া প্রতিবেশী আত্মিয় স্বজনরা। কিন্তু শুধু এখানেই শেষ না। গল্পে বেঁচে আছে আরো অনেক বেশি কিছু। আরো অনেক সমস্যাই ফেস করতে হয় ২৫ বছরের ও’পরের অবিবা’হিত মে’য়েদের।

বাইরে কোথাও বেরালে বা অফিসে চার পাসের লোকেদের কাছে এই জিনিসটি খুবই মনোরঞ্জন করার মত একটি বি’ষয়। কবে আর বিয়ে করবে ও? কি জানি কি ব্যাপার। এইসব কথা কোন আইবুড়ো মে’য়েই শুনতে পারে না। না চাইতেও তাকে পাশ কাটিয়ে চলে যেতে হয়।

কোন রকম বিয়ে বাড়িতে যাওয়া বা যে কোন অনুষ্ঠান বাড়িতে যাওয়াটা তার জন্য হয়ে ওঠে একটি মহা চা’পের বি’ষয়। তার কারন হল যেখানেই তুমি যাও না কেন তোমাকে হাজার একটা প্রশ্নের সম্মুখিন হতে হবে। যার মধ্যে প্রথম প্রশ্নটি হবে কি গো তোমার বিয়ে তে খাবো তো নাকি? বিয়ে টা কবে করছো মা ?

কোন অনুষ্ঠানে গিয়ে যে একটু ভালো ভাবে তৃ’প্তি করে চেটে পুটে খাবে সেটারও কোন উপায় নেই। সেখানেও সেই একঘেয়ে প্রশ্নের সম্মুখিন হতে হয় মে’য়েটি কে। বিয়ে কেন হচ্ছে না ?

ব’য়স বেড়ে যাওয়াতে চলে আসে পোশাক আসাক পরার ও’পরেও রেস্ট্রিক্সন। একটু জমকালো জামা কাপর পড়লো তা নিয়ে লোকে কটুক্তি করার একটা সামান্য সুযোগও ছাড়ে না।

যখন কোন অনুষ্ঠান বাড়িতে নিজের থেকে ছোট ব’য়সি মে’য়েদের বর বা বয়ফ্রেন্ডের হাত ধরে সে ঘুরতে দেখে তখন তার নিজের মধ্যেও একটা খা’রাপ লাগা চলে আসে।

ব’য়স বেড়ে যাওয়াতে বিয়ে না হলে অনেক কুপ্রস্তাবের সম্মুখীনও হতে হয় একজন একা ম’হিলাকে। শুধু তাই নয় একজন মে’য়ের বিয়ে না হলে তার চরিত্রের দিকে আঙুল তুলতে ছাড়েন না পাড়া প্রতিবেশী এমন কি আত্মীয়স্বজনেরাও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here