‘স্যার আমি অ’পরাধ করেছি। ব্যবসা চালু হলে আস্তে আস্তে সবার টাকা ফেরত দিয়ে দেব’; রি’মান্ড শুনানি চলাকালে আ’দালতে দাঁড়িয়ে এভাবেই আবেদন করছিলেন রিজেন্ট গ্রুপ ও রিজেন্ট হাসপাতাল লিমিটেডের চেয়ারম্যান শাহেদ করিম ওরফে মোহাম্ম’দ শাহেদ।

তিনি বলেন, আমি ও মাসুদ দুজনই অ’পরাধী। আমার বি’রুদ্ধে মা’মলার রি’মান্ড শুনানি ঈদের পর হলে ভালো হয়। কয়দিন ধরে রি’মান্ডে আছি। আমি অ’সুস্থ।

এর আগে টানা ১০ দিনের রি’মান্ড শেষে সকালে শাহেদ করিমকে আ’দালতে হাজির করে ৪ মা’মলায় ৪০ দিনের রি’মান্ড আবেদন করে পু’লিশ। শুনানি শেষে শাহেদ করিমকে ৪ মা’মলায় ৭ দিন করে রি’মান্ডে দেন আ’দালত।

তার আগে ক’রোনা টেস্ট পরীক্ষা প্র’তারণার অভিযোগে ১৫ জুলাই ভোরে সাতক্ষীরার সী’মান্তের দেবহাটা থানার সাকড় বাজারের পাশে

অবস্থিত লবঙ্গপতি এলাকা থেকে নৌকায় পা’লিয়ে যাওয়া অবস্থায় রিজেন্ট হাসপাতালের শাহেদকে গ্রে’ফতার করে র‌্যা’ব। এরপরে বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) শাহেদকে ১০ দিনের রি’মান্ডে পাঠায় আ’দালত।

তারও আগে গত ৬ জুলাই ক’রোনা পরীক্ষার ভুয়া রিপোর্ট দেয়ার অভিযোগে র‍্যা’ব উত্তরার রিজেন্ট হাসপাতালে অ’ভিযান চা’লায়। এরপর রিজেন্ট হাসপাতালের উত্তরা ও মিরপুর শাখা সিলগালা করে দেয়া হয়।

৭ জুলাই ক’রোনা পরীক্ষা না করেই সার্টিফিকেট প্রদানসহ বিভিন্ন অভিযোগে রিজেন্ট হাসপাতালের বি’রুদ্ধে উত্তরা পশ্চিম থানায় মা’মলা করে র‌্যা’ব। মা’মলায় রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান শাহেদ করিমকে প্রধান আ’সামি করে ১৭ জনের নাম উল্লেখ করা হয় এজাহারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here