দেশীয় প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেকের ক’রোনা ভ্যাকসিন ব্যানকো’ভিড’কে স্বীকৃতি দিয়েছে বিশ্ব স্বা’স্থ্য সংস্থা। আজ শনিবার (১৭ অক্টোবর) বিশ্ব স্বা’স্থ্য সংস্থার পক্ষ থেকে এ ত’থ্য জানানো হয়।

গত ১৫ অক্টোবর গ্লোবের তিনটি ভ্যাকসিনকে বিশ্বজুড়ে ক’রোনা ভ্যাকসিন নিয়ে চলমান গবে’ষণাগুলোর তালিকায় অন্তুর্ভুক্ত করে বলে নিশ্চিত করেছে গ্লোব বায়োটেক। এরই মধ্যে তাদের তৈরি ক’রোনা ভ্যাকসিন ‘ব্যানকো’ভিড’মানবদে’হে ট্রায়ালের জন্য আইসিডিডিআরবি’র স’ঙ্গে সমঝোতা চুক্তি সই করেছে গ্লোববায়োটেক।

ক’রোনার ভ্যাকসিন সম্প’র্কে গ্লোব বায়োটেক এর সিইও ড. কাকন নাগ সম্প্রতি জানান, বর্তমানে সারাবিশ্বে ক’রোনা আ’ক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ চলছে। এই সং’ক্র’মণে ডি৬১৪জি ভ্যারিয়েন্টটি শতভাগ দায়ী বলে সাম্প্রতিক গবে’ষণায় উঠে এসেছে। বাংলাদেশ শিল্প ও বিজ্ঞান গবে’ষণা পরিষদও (বিসিএসআইআর) বাংলাদেশে সং’ক্র’মণের জন্য ডি৬১৪জি ভ্যারিয়েন্টকে দায়ী বলে নিশ্চিত করেছে।

তিনি বলেন, ‘‘আমাদের নিজস্ব প্রযুক্তিতে উদ্ভাবিত ‘ব্যানকো’ভিড’ টিকাটি ডি৬১৪জি ভ্যারিয়েন্টের বি’রুদ্ধে প্রথম ও একমাত্র আবি’ষ্কৃত টিকা।’’

প্রস’ঙ্গত, গত ২ জুলাই গ্লোব বায়োটেক লিমিটেড দেশে প্রথম ভ্যাকসিন আবি’ষ্কারের ঘোষণা দেয়। সেদিন তারা জানায়, গত ৮ মার্চ তারা এই টিকা আবি’ষ্কারের কাজ শুরু করে এবং সব পর্যায়ের কাজ শেষ করতে পারলে আগামী ছয় থেকে সাত মাসের মধ্যে এই টিকা বাজারজাত করা যাবে।

আরও পড়ুন= ছাত্র আন্দোলনের মধ্যে ক্ষ’মতার লোভ ঢুকেছে: মেনন

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এমপি বলেছেন, ‘আজকে ছাত্র আন্দোলনের অনেকখানি অবক্ষয় হয়েছে। ছাত্র আন্দোলনের মধ্যে ক্ষ’মতার লোভ ঢুকেছে। ভোগবাদিতা ঢুকেছে। তবে এটা তাদের দোষ নয়। এটা রাজনীতির দোষ।’ শনিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সুর সম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ সংগীতাঙ্গন মি’লনায়তনে বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রী, জে’লা শাখার ১৫তম কাউন্সিলে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

রাশেদ খান মেনন বলেন, ‘রাজনীতির মধ্যে যখন দু’র্বৃত্তায়ন ঘটে, সা’ম্প্রদায়িকতা চলে আসে, তখন ছাত্র-তরুণ সমাজের মধ্যে লোভ-লালসা চলে আসাটা খুবই স্বাভাবিক। তারপরও আজকে জাতি তাকিয়ে আছে ছাত্রদের দিকে। তারা নিশ্চয়ই এই লড়াইয়ে পথ দেখাবে। আমরা তাই দেখতে পাচ্ছি।’

দেশের চলমান প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি বলেন, ‘যখন দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতি প্রবলভাবে জেকে বসেছে, ধ’র্ষণ ম’হামা’রি আকার রূপ নিয়েছে; তখন ছাত্ররাই এগিয়ে এসে লড়াই শুরু করেছে। আমাদের সময় থেকে তারা অনেক বেশি সাহসী লড়াই করছে।’

ছাত্র মৈত্রীর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জে’লা শাখার ১৫তম কাউন্সিলে নেতারা ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রস’ঙ্গে তিনি বলেন, ‘ব্রাহ্মণবাড়িয়া এমন একটি জায়গা, যেখানে ধর্মের নামে ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ সংগীতালয় ভে’ঙে গু’ড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। যার মূ’ল্যবান নিদর্শন এখনও উ’দ্ধার করা সম্ভব হয়নি। এখানে ধর্মের নাম করে সা’ম্প্রদায়িকতা ছড়ানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। অথচ বাংলাদেশের জ’ন্ম হয়েছে অসম্প্রদায়িক চেতনার ভিত্তিতে।’ তিনি ছাত্র মৈত্রীর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জে’লা শাখার নেতাকর্মীদের মাঝে সংগঠনটির বর্ণাঢ্য ইতিহাস ও ত্যাগের কথা তুলে ধরেন।

জে’লা ছাত্র মৈত্রীর আহ্বায়ক মুহয়ী শারদের সভাপতিত্বে কাউন্সিলের উদ্বোধ’ন করেন বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রীর সভাপতি ফারুক আহমেদ রুবেল। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির জে’লা শাখার সভাপতি কম’রেড অ্যাডভোকেট কাজী মাসুদ আহামেদ, সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ খান, জে’লা শ্র’মিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রীর প্রচার ও প্রকাশনা-বি’ষয়ক সম্পাদক তারিকুল ইসলাম, রাজনৈতিক শিক্ষা ও গবে’ষণা-বি’ষয়ক সম্পাদক ইয়াতুননেছা রুমা এবং জে’লা ছাত্র মৈত্রীর সাবেক সহ-সভাপতি ফরহাদুল ইসলাম পারভেজ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here