স্বা’স্থ্য বদহজ’ম, গ্যাস, পে’ট ফোলা, এসিড হবার প্রধান কারণ ও তা থেকে মু’ক্তি পাবার সহ’জ ও ঘরো’য়া উপায়, এসিড হবার প্রধান কারণ- বদহজ’ম এবং এসিড প্র’তিপ্রবাহ আপনার অস্বা’স্থ্যকর অভ্যা’সের ফলাফলের জন্যে হয়। আপনি যদি এখন এই স’মস্যাগু’লি লক্ষ্য করেন তাহলে এটি আপনার জন্য চি’ন্তার কারণ হয়ে দাঁড়াবে।

খাওয়ার পরে ঘুম এবং আলস্য স’মস্যা অত্যন্ত গু’রুত্ব সহকারে গ্রহণ করা উচিৎ। এই রো’গ থেকে পরিত্রাণ পেতে আপনাকে কিছু অনিষ্টজনক অভ্যা’সগু’লি এড়াতে হবে। বদহজ’ম এবং এসিড প্রতিপ্রবাহের প্রধান কারণগু’লি এবং প্র’তিরো’ধমূ’লক ব্যব’স্থাগু’লি দেখু’ন।

প্রোটিন হজ’ম করার জন্য বেশি সময় লাগে যেখানে শ্বে’তসার সহজে শ’র্করাতে ভে’ঙ্গে যায়। শ্বে’তসার এবং প্রো’টিন একস’ঙ্গে পে’টে মি’শ্রিত হয়, প’রিবর্তে সা’মগ্রিক হজ’ম প্রক্রিয়া বিলম্বিত হয়। হজ’ম দেরি হওয়ায় গ্যাস স’মস্যার সৃষ্টি করে। এই স’মস্যার জন্য একটি চমৎকার সমাধান শ্বে’তসারের পরে প্রোটিন গ্রহণ করা। এটা আরও ভালো হয় যদি আপনি শাকসবজির সাথে শ্বেতসার ও প্রোটিন গ্রহণ করেন।

২। খাবারের স’ঙ্গে ঠান্ডা পানি কখনও পান করবেন না। খাবারের সাথে বরফ ঠান্ডা জল পান করলে র’ক্তনালীর সংকোচন এবং ফ্যাটের দৃ’ঢ়ীকরণ ঘ’টে যার ফলে হজ’ম প্র’ক্রিয়াটি রো’ধ হয়। আপনার শ’ক্তি পাচন স’ম্পন্ন করার প’রিবর্তে শ’রীরের তা’পমাত্রা নি’য়ন্ত্রণে ব্যবহৃত হয়। খাবার আগে গরম পানি বা সবুজ চা পান করে এই স’মস্যা প্র’তিরো’ধ করা যেতে পারে। জাপানি মানুষ সর্বদা হজ’মের জন্য খাবার আগে গরম পানি বা স্যু’প পান করে।

৩। আপনার খাবার স’ঙ্গে পানি পান এড়িয়ে চলুন। আপনি খাবার সময় আল্প পানি পান ক’রতে পারেন, কিন্তু বেশি পরিমাণে পানি খেলে বদহজ’ম ও এসিডিটি হয়ে পারে। খাবার খাওয়ার সময় এইচসিএল আপনার পে’ট হজ’ম প্রক্রিয়া সাহায্য করার জন্য নিঃসৃত হয়।হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড প্রকৃতিতে অতি অম্লীয়। এটি খাবার কে অতি ক্ষুদ্র ও শোষণযোগ্য পু’ষ্টিতে ভা’গ করে।

খাবারের সাথে জল পান এইচসিএল ক্ষয় করে এবং হজ’ম প্রক্রিয়া হ্রা’স ক’রতে পারে। আপনি ব’দহজ’ম ও এসিডিটি রো’ধ করার জন্য একটি সহজ টিপ অনুসরণ ক’রতে পারেন হজ’ম প্রক্রিয়া নি’য়ন্ত্রণ করার জন্য আপনার খাবারের এক ঘন্টা আগে বা পরে জল পান করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here