গাজীপুরে দুই কি’শোর মিলে পাঁচ বছরের এক শি’শুকে ধ”ণ করে হ’ত্যার পর লা’শ বালির নিচে চা’পা দিয়ে রাখে। এ ঘটনায় অ’ভিযুক্ত দুই কি’শোরকে রবিবার রাতে গ্রে’ফতার করে গাজীপুর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

গ্রে’ফতাররা হলো যশোরের ঝিকরগাছা থানার কুন্দিপুর এলাকার মো. রাসেল ওরফে রাহুল (১৪) ও গাজীপুর মহানগরীর কাশিমপুর থানার বাগবাড়ি এলাকার সবুজ (১৪)। সোমবার (২ নভেম্বর) বিকালে গাজীপুর পিবিআইয়ের কার্যালয়ে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাকছুদের রহমান।

পরে শি’শুটি ওই এলাকার মনোয়ারের বাড়ির ভাড়াটিয়া মো. রফিকুল ইসলামের মেয়ে রিয়া মনি বলে পরিচয় নিশ্চিত করা হয়। পিবিআই জানায়, শি’শু নিখোঁজের ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হলেও লা’শ উ’দ্ধারের ৩০ অক্টোবর তা মা শ্যামলী বেগম অ’জ্ঞাত আ’সামি করে কাশিমপুর থানায় একটি হ’ত্যা মা’মলা দা’য়ের করেন। শি’শুটির বাবা-মা স্থানীয় পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন।

আলোচতি এ মা’মলাটি পিবিআইয়ের হাতে ন্যস্ত হলে রবিবার রাত ১০টার দিকে যশোর জে’লার ঝিকরগাছা থানাধীন কুন্দিপুর নিজ বাড়ি থেকে ঘটনায় সরাসরি জ’ড়িত কি’শোর মো. রাসেল ওরফে মো. রাহুলকে (১৪) গ্রে’প্তার করা হয়। পরে তার দেওয়া স্বী’কারোক্তিতে তার সহযোগী ও বন্ধু সবুজকে (১৪) তার বাড়ি কাশিমপুর বাগবাড়ি থেকে গ্রে’প্তার করে পিবিআই সদস্যরা।

পুলিশের প্রাথমিক জি’জ্ঞাসাবাদে গ্রে’ফতাররা ঘটনায় জ’ড়িত থাকার কথা স্বীকার করে জানায়, তারা দু’জন শি’শুটিকে বিভিন্ন সময় চকলেট ও বিস্কুট কিনে দিত। ঘটনার দিন গত ৯ আগস্ট সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তারা দু’জন মিলে রাসেলের ঘরের মধ্যে শি’শুটিকে ধ”ণ করে। শি’শু ঘটনাটি তার বাবা-মাকে বলে দেওয়ার কথা বললে রাসেল ও সবুজ মিলে শি’শু রিয়া মনিকে গ’লাটি’পে হ’ত্যা করে। পরে তার লা’শ ওই এলাকার নির্মাণাধীন পরিত্যাক্ত বিল্ডিংয়ের বালুর নিচে চা’পা দিয়ে রাখে। গ্রেপ্তাতদের সোমবার গাজীপুর আ’দালতে পাঠানো হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here