সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপি বলেছেন, ‘বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক সময়ের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ। দু’দেশের সম্পর্কের আলোক শিখা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং ইন্দিরা গান্ধীর ধারাবাহিকতায় আজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং নরেন্দ্র মোদি’তে এসেও দীপ্যমান।’

আজ মঙ্গলবার সকালে সচিবালয়স্থ কার্যালয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এসব কথা বলেন। এর আগে ওবায়দুল কাদের বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামীর সঙ্গে বৈঠক করেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরও বলেন, ‘৭৫ পরবর্তি সময়ে গড়ে ওঠা সন্দেহ ও অবিশ্বাসের কৃত্রিম দেয়াল ভেঙ্গে এখন রচিত হয়েছে আস্থা ও সৌহার্দের সেতু।’

তিস্তার পানি বন্টনের বিষয়ে ইতিবাচক অগ্রগতি হয়েছে জানিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী বলেন, ‘আলোচনার মাধ্যমে ইতোমধ্যে অনেক অমীমাংসিত সমস্যা সমাধান হয়েছে।’

প্রসঙ্গত, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে ভারতীয় হাইকমিশনারের সাক্ষাৎকালে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ভারতীয় হাইকমিশনের তৈরি বঙ্গবন্ধুর সম্মানে বিশেষ সংস্করণের হাতঘড়ি উন্মোচন করা হয়। ঘড়িগুলোর ডায়ালে রয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি এবং স্বাক্ষর।

এসময় ভারতের হাইকমিশনার বলেছেন, ‘বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের জাতির পিতা হলেও তিনি ভারতীয় জনগণের কাছে বীর।’ স্বাধীনতার পর ১৯৭২ সালের জানুয়ারিতে বাংলাদেশে আসার পথে ভারতীয় জনগণ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে যে উষ্ণতা ও ভালবাসা দেখিয়েছিলেন তা তিনি স্মরণ করেন।

স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বাংলাদেশ সফরে আসবেন বলে এসময় মন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here