এক সপ্তাহ আগে চট্টগ্রামের পটিয়া থেকে উ’দ্ধার হওয়া গ’লায় গা’মছা পেঁ’চানো ও পা’য়ের রগ কা’টা লা’শটি ছিল ন’বী হো’সেন নামের এক ব্যক্তির। তিনি কি’শোরগঞ্জ জে’লার ভৈরবের আগানগর ইউনিয়নের পুরানচর এলাকার বাসিন্দা।

প্রতিবেশী এক প্রবা’সীর স্ত্রীর সাথে প’রকীয়ায় জ’ড়িয়ে তারা পা’লিয়ে বিয়ে করেন। আর সেটি মেনে নিতে পারেনি ওই প্রবা’সীর ছেলে সাব্বির। সাব্বির ৬০ হাজার টাকার বিনিম’য়ে ভাড়াটে খু’নি দিয়ে খু’ন করায় নবী হোসেনকে। এ ঘটনায় আশিক ও সুমন নামে দু’জনকে গ্রে’ফতার করে আ’দালতে সো’পর্দ করলে আ’দালত তিন দিনের রি’মান্ড মঞ্জুর করেন।

তিনি আরও বলেন, মূলত প’রকী’য়ার বলি হলেন নবী হোসেন। খু’ন হওয়ার আগে তিনি তার প্রতিবেশী প্রবা’সী এক ভাইয়ের স্ত্রীকে নিয়ে পা’লিয়ে বি’য়ে করেন। আর সেটি মেনে নিতে পারেননি প্রবাসীর ছেলে সাব্বির। সাব্বির ৬০ হাজার টাকার বিনিময়ে তুষার নামের এক ভাড়াটে খু’নিকে দিয়ে দুইদিনের প্রচেষ্টায় নবী হোসেনকে খু’ন করায়। খু’নের দুই দিন আগে তারা নবী হোসনকে মাইক্রোতে তুলতে চেয়ে ব্যর্থ হন।

অবশেষে ১৭ অক্টোবর ভৈরব থেকে নবী হোসেনকে অ’পহরণ করে চট্টগ্রামের দিকে নিয়ে আসার পথে কুমিল্লায় মহাসড়কে মুখে গামছা বেঁ’ধে গ’লা টি’পে হ’ত্যা করে। মৃ’ত্যু নিশ্চিত করার জন্য নবী হোসেনের পায়ের রগও কে’টে দেয়া হয়। লা’শটি গাড়িতে পায়ের নিচে রেখে দিয়ে চট্টগ্রাম কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়া উপজে’লার কুসুমপুরা ইউনিয়নের হরিখাইন এলাকায় ফে’লে তারা কক্সবাজার বেড়াতে যান। কক্সবাজার বেড়িয়ে সবাই আত্মগো’পনে চলে গেছেন। আমরা দু’জনকে আ’টক করেছি।

আ’টককৃতদের আ’দালতে তিন দিনের রি’মান্ড মঞ্জুর হয়েছে জানিয়ে এসপি নাজমুল হাসান বলেন, রবিবার আমরা আশিক ও সুমনকে জি’জ্ঞাসাবাদের জন্য আ’দালতে সাত দিনের রি’মান্ড আবেদন করেছিলাম। আ’দালত তিনদিনের রি’মান্ড আদেশ দিয়েছেন। এই দুই জনের রি’মান্ড চলবে। সাব্বির ও তুষারকে গ্রে’ফতারে আমাদের টিম কাজ করছে।

প্রসঙ্গত, গত ১৭ অক্টোবর চট্টগ্রাম কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়া উপজে’লার কুসুমপুরা ইউনিয়নের হরিখাইন এলাকা রাস্তার পাশ থেকে নি’হত নবী হোসেনের লা’শ উ’দ্ধার করে পটিয়া থানা পুলিশ। লা’শ উ’দ্ধারের পর নবী হোসেনের ভাই চট্টগ্রামে লা’শ শনাক্ত করেন এবং পটিয়া থানায় পাঁচজনকে আ’সামি করে মা’মলা দা’য়ের করেন। পিবিআই স্ব-প্রণোদিত হয়ে এই হ’ত্যা মা’মলার ত’দন্তভার গ্রহণ করে এক সপ্তাহের মাথায় হ’ত্যাকাণ্ডের র’হস্য উদঘাটন করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here